২৬শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ রাত ৩:৩৭
ব্রেকিংনিউজ
সাংবাদিক হোসাইনের পিতার ইন্তেকাল, প্রেসক্লাবসহ সুধীজনদের শোকপ্রকাশ কেন্দ্রীয় যুবদলের সহ-সভাপতি আনছার উদ্দিনের ঈদ শুভেচ্ছা ঈদে শপিং করে ফেরার পথে স্পিডবোট ডুবে মা-মেয়ের মৃত্যু পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নূর কালামের ঈদ শুভেচ্ছা পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শহীদুর রহমান শহিদের ঈদ শুভেচ্ছা দ. সুনামগঞ্জ উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক সুহেল মিয়ার ঈদ শুভেচ্ছা দ. সুনামগঞ্জ মানবাধিকার কমিশনের সভাপতি ও আফাজল ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ডা. শাকিল মুরাদ আফজলের ঈদ শুভেচ্ছা আফজল ফাউন্ডেশন যাকাতের শাড়ি পেলেন ৯০ জন দুঃস্থ নারী যুক্তরাজ্য প্রবাসী এহসান মির্জার ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা বিনিময় ফ্রান্স প্রবাসী ক্রিড়াবিদ আতিকুর রহমানের ঈদ শুভেচ্ছা

হাসপাতালে সরবরাহ থাকার পরও মেডিসিন কিনতে হয় রোগীদের

মহাসিং ডেস্ক
  • আপডেট : শনিবার, ২২ আগস্ট, ২০২০
  • ২৭৩ বার পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদক :
সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল( জরুরী বিভাগ)পর্ব-১ :

২৫০ শয্যা সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল সুনামগঞ্জের ২৫ লাখ মানুষের চিকিৎসা সেবার প্রধান স্থান। দেশের পিছিয়ে পড়া হাওরের জনপদ সুনামগঞ্জের এই চিকিৎসালয় নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই জেলাবাসীর। নামে ২৫০ শয্যা হলেও কাজে ৫০ শয্যার সেবাও মিলেনা বলে অভিযোগ ভোক্তভোগীদের। হাসপাতালের ৮তলা বহুতল ভবনে অবকাঠামোগত সমস্যা নিরসন হলেও প্রশ্ন থাকছে সেবার মান নিয়ে। হাসপাতালের জরুরী বিভাগ কিংবা অটি রুমে নূন্যতম সেবা পেতে হলেও টাকা খরচ করতে হয় সাধারণ সেবাগ্রহীতাদের। সুতা থেকে মেডিসিন সবই কিনতে হয় রোগীদের। সরবরাহ না থাকার অজুহাতে ফায়দা লুটছে একটি সিন্ডিকেট। রোগীদের কাছ থেকে বাড়তি মেডিসিন ক্রয় করে নিজেদের আখেরগোজ করে থাকেন সিন্ডিকেটে থাকা হাসপাতালের তৃতীয়-চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীরা। যা উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের নখদর্পনে থাকলেও বিহীত ব্যবস্থা গ্রহণের উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি।

স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষে ওষুধ ও সরঞ্জাম থাকার কথা থাকলেও হাসপাতালে এসে গায়েব হয়ে যায় বলে জানান ভোক্তভোগীরা।

শনিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, জরুরী বিভাগ ও অটিরুমের হালচিত্র। জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসেন দুর্ঘটনায় বা সংঘর্ষে আহত রোগী ও বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত মূমুর্ষ রোগীরা। রোগি আসার সাথে অবস্থা দেখে মেডিসিনের কাগজ ধরিয়ে দেন কর্তব্যরত ডাক্তার। যেখানে, গ্লাভস, সুতা, ব্যান্ডেজ, ব্যাথা নাশক ইনজেকশনসহ বিভিন্ন মেডিসিন বাহির থেকে সংগ্রহ করতে হয় রোগীর স্বজনদের। হাসপাতাল থেকে এসব মেডিসিন দেওয়ার কথা থাকলেও সরবরাহ নেই বলে অজুহাত দেখান কর্তব্যরতরা। এসব ব্যয়বহুল মেডিসিন ক্রয় করতে হিমসিমে পড়তে হয় তুলনামুলক গরিব ও নিম্ন আয়ের মানুষের। একই অবস্থায় অপারেশন থিয়েটারের। ছোটখাটো অপারেশনসহ সকল ধরনে মেডিসিন বাহির থেকে কিনতে হয় রোগীর স্বজনদের। এখানেও সরবরাহ নেই বলে চালিয়ে দেন সংশ্লিষ্টরা। অটিরুমের ড্রেসিং শয্যায় ব্যান্ডেজ,গ্লাবস, হ্যান্ডসেনিটাইজার,স্পীড, পবিসেফ, ব্যাথানাশক ইনজেকশনসহ সব বাহির থেকে সরবরাহ করতে হয় রোগীদের। তাছাড়া ড্রেসিং সেবা পেতে ব্রাদার কিংবা নার্সদের দিতে হয় বাড়তি উৎকোচ। এ যেনো নিয়মে পরিণত হয়ে গেছে। টাকা দিলে মানসম্মত সেবা মিলে, না হয় যত্রতত্র।

সদর উপজেলার কতুবপুর গ্রামের মেহেদি হাসান সড়ক দুর্ঘটনায় পা ভেঙ্গে ছিলেন। দ্বিতীয়বার পায়ের প্লাস্টার করতে এসেছিলেন। ব্যান্ডেজসহ বিভিন্ন উপকরণ কিনতে হয়েছে বাহির থেকে তার। প্রায় ২০০ টাকার উপকরন কিনতে হয়েছে তাঁর। মেহেদি হাসানের মতো অসংখ্য রোগী দেখতে পাওয়া যায় অটিরুম কিংবা জরুরী বিভাগে সেবা গ্রহণ করতে প্রয়োজনীয় মিডিসিন কিনতে হয় বাহির থেকে ।

সুমন মিয়া নামে এক রোগীর স্বজন বলেন, আমি আমার ভাইকে নিয়ে হাসপাতালে আসছি। আঘাত পেয়ে মাথা ফেটে গেছে তাঁর। জরুরী বিভাগে আসার পরই একটি টুকায় ইনজেকশন, সুতাসহ আরও কিছু মেডিসিন কিনতে হয়েছে আমাকে। হাসপাতাল থেকে দেওয়ার কথা বললে তারা ব্রাদার জানান হাসপাতালে সাপ্লাই নেই।
এদিকে হাসপাতালে সকল ধরনের মেডিসিন সহ চিকিৎসা সরঞ্জাম পর্যাপ্ত পরিমাণ মজুদ থাকার কথা জানালেন সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক অফিসার ডা. রফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, সকল প্রকার ওষুধ, ইনজেকশনসহ চিকিৎসা সরঞ্জাম মজুদ রয়েছে। কোনো কিছুই রোগীদের বাহির থেকে কিনতে হবে না। সব কিছু সররাহ থাকার পরও কেনও রোগীদের বাহির থেকে কিনে আনতে হয় এমন প্রশ্ন তিনি বলেন, ডাক্তাররা কোনো মেডিসিন বাহির থেকে কিনে আনার কথা বললে সাথে সাথে আমাকে জানালে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। রোগীরা সেবা থেকে বঞ্চিত যাতে না হয় সে ক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষ খুবই আন্তরিক বলে জানান তিনি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ধরনের আরও সংবাদ

© All rights reserved ©2020 mahasingh24.com Developed by PAPRHI.XYZ
Theme Dwonload From Ashraftech.Com
ThemesBazar-Jowfhowo