২১শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ রাত ৯:৪৩
সর্বশেষ সংবাদ

উজির মিয়া হত্যায় অভিযুক্ত এসআই দেবাশীষকে বদলি

নোহান আরেফিন নেওয়াজ
  • আপডেট বুধবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
  • ৮৬৮ Time View

শান্তিগঞ্জে পুলিশের নির্যাতনে উজির মিয়ার (৪২) মৃত্যুর অভিযোগ ওঠার পর শান্তিগঞ্জ থানা পুলিশের এসআই দেবাশীষ সূত্রধরকে বদলি করা হয়েছে।

আজ বুধবার (২৩ ফেব্রুয়ারী) বিকেলে তাঁকে শান্তিগঞ্জ থানা থেকে দিরাই থানায় বদলি করা হয়। এসআই দেবাসীষের বদলির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু সাঈদ।

শান্তিগঞ্জের শত্রুমর্দন (বাঘেরকোনা) গ্রামের বাসিন্দা উজির মিয়া গত সোমবার দুপুরে মারা যান। পুলিশের নির্যাতনে তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করে ঘটনার সঙ্গে জড়িত পুলিশ সদস্যদের আইনের আওতায় আনার দাবিতে ওইদিন দুপুরে উপজেলার পাগলা বাজার এলাকায় লাশ নিয়ে সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন উজির মিয়ার স্বজন ও এলাকাবাসী। দীর্ঘ ৩ ঘন্টা অবরোধের পর প্রশাসন ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে উত্তেজিত লোকজনকে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে তাঁর দাফন সম্পন্ন হয়।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উজির মিয়া ছোটখাটো ব্যবসায়ী ছিলেন। গত ৯ ফেব্রুয়ারি গভীর রাতে বাড়ি থেকে উজির মিয়াকে ধরে নিয়ে যায় শান্তিগঞ্জ থানার পুলিশ। থানায় নিয়ে তাঁর ওপর নির্যাতন চালানো হয়। পরদিন তাঁকে একটি চুরির মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠায় পুলিশ। ওইদিনই আদালত থেকে উজির মিয়া জামিনে ছাড়া পান। বাড়িতে আসার পর উজির মিয়ার সারা শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন দেখতে পান পরিবারের সদস্যরা। এরপর উজির মিয়া অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে পাঁচদিন চিকিৎসার পর কিছুটা সুস্থ হলে তাঁকে আবার বাড়িতে আনা হয়। গত সোমবার সকালে তিনি আবার অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে স্থানীয় কৈতক হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পরিবারের অভিযোগ, শান্তিগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) দেবাশীষ সুত্রধর , পার্ডন কুমার সিংহ ও আক্তারুজ্জামান উজির মিয়াকে হেফাজতে নিয়ে ব্যাপক নির্যাতন করেছেন।

আজ জেলা প্রশাসনের করা তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ার উল হালিম কমিটির অন্য সদস্যদের নিয়ে ওই এলাকায় স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেন ।
আজ জেলা প্রশাসনের করা তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ার উল হালিম কমিটির অন্য সদস্যদের নিয়ে ওই এলাকায় স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলেন।
এদিকে উজির মিয়ার মৃত্যুর ঘটনায় জেলা প্রশাসন ও পুলিশের করা পৃথক দুটি কমিটি তদন্তকাজ করছে। আজ সকালে জেলা প্রশাসনের করা তদন্ত কমিটির প্রধান সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ার উল হালিম কমিটির অন্য সদস্যদের নিয়ে ওই এলাকায় যান। তাঁরা এ বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলেন। একইভাবে পুলিশের করা তদন্ত কমিটিও কাজ করছে।

সার্বিক বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু সাঈদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। যেহেতু আমাদের দু–একজন সদস্যকে নিয়ে কথা উঠেছে। তাই বিষয়টি আমরা আরও বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখছি। আমাদের কোনো ভুলত্রুটি আছে কি না, আমরা সেটিও দেখব।’

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের অন্যান্য সংবাদ
Developed by PAPRHI
Theme Dwonload From Ashraftech.Com
ThemesBazar-Jowfhowo